শিশিশি শব্দ করলে বা শিস দিলে শিশুরা প্রসাব করে কেন?

শিশিশি শব্দ করলে বা শিস দিলে শিশুরা প্রসাব করে কেন?

আমরা ছোটবেলায় বাব-মায়ের শিশিশি শব্দ বা শিস শুনে প্রসাব করতাম। এই শব্দে স্বতঃস্ফূর্তভাবে প্রসাব চলে আসতো।এমন বাচ্চা খুঁজে পাওয়া দুষ্কর যারা এই শিশিশি শব্দের সাথে পরিচিত নয়।

সিসিসি শিস শব্দ করলে বাচ্চারা হিসু করে কেন?
সিসিসি শিস শব্দ করলে বাচ্চারা হিসু করে কেন?

অনেকের তো এখনো এই শব্দ শুনে প্রসাব চলে আসে। এই যা কেউ আবার এখনি হিসু করে ফেলবেন না, হা হা হা! যাইহোক সবার মনেই এই প্রশ্ন বেশ তোলপার করে যে কেন এই শব্দ শুনে শিশুরা হিসু করে? তাহলে আর দেরি কেন? আসুন একবার শিশিশি শব্দ করে প্রবেশ করি শিশুকালে আর খুঁজে বেরকরি আসল সত্য!

শিশিশি শব্দ করলে বা শিস দিলে শিশুরা প্রসাব করে কেন? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে হলে আপনাকে প্রথমে জানতে হবে প্রাণিআচরণ বিজ্ঞানের এক আশ্চর্যজনক তত্ত্ব। তত্ত্বটি কন্ডিশন রিফ্লেক্স তত্ত্ব নামে পরিচিত।

আপনি আরও পড়তে পারেন…. মেয়েদের প্রসাব করার সময় শব্দ হয় কেন?

কন্ডিশন রিফ্লেক্স তত্ত্ব

প্রধান উদ্দিপকের সাথে একটি বিকল্প উদ্দিপক বারবার উপস্থাপন করলে একসময় শুধু বিকল্প উদ্দিপকের সাহায্যে কাঙ্ক্ষিত ফলাফল লাভ করা যায়। একে কন্ডিশন রিফ্লেক্স তত্ত্ব বলে। কি বুঝতে কষ্ট হলো বুঝি? তাহলে আসুন উদাহরণ দিয়ে সহজ করে দেই।

বিজ্ঞানী ইয়ান পেভলব কুকুরের সাহায্যে এই তত্ত্বটি পরীক্ষা করেন। তার পরীক্ষাটি বেশ জনপ্রিয়। তিনি একটি কুকুরকে প্রতিদিন মাংস খেতে দিতেন এবং মাংস খাওয়ানোর সময় একটি ঘণ্টা বাজাতেন। মাংস দেখে কুকুরের মুখ থেকে স্বাভাবিকভাবেই লালা ক্ষরিত হয়। কিন্তু মাংস খাওয়ানো এবং ঘণ্টা বাজানোর কাজ দীর্ঘদিন ধরে একসাথে করার পর একসময় দেখা গেল শুধু ঘণ্টা বাজালেই কুকুরের মুখ থেকে লালা ক্ষরিত হচ্ছে।

পেভলবের-কুকুর
পেভলবের-কুকুর

এর থেকে বোঝাযায় যে কুকুরের মস্তিষ্কে ঘন্টার ধ্বনি অবচেতনভাবে সংরক্ষিত হয়েছে এরফলে সে মনে করে ঘন্টা বাজালেই মাংস আসবে। তাই শুধু ঘণ্টার ধ্বনি শুনেই কুকুরের মুখে লালা ক্ষরণ শুরু হয়। এক্ষেত্রে প্রধান উদ্দিপক মাংস আর বিকল্প উদ্দিপক ঘণ্টার শব্দ।

শিশিশি শব্দ করলে বা শিস দিলে শিশুরা প্রসাব করে কেন?

বাবা-মা শিশুর প্রসাব করার সময় হলে শিশিশি শব্দ করে বা শিস দেয় এতে বাচ্চারা প্রসাব করে এবং এই শব্দ একই সাথে শুনে। কিছুদিন একই কাজের পুনঃরাবৃত্তি করলে একসময় শিশুর অবচেতন মনে শিশিশি শব্দ স্থায়িভাব জমা হয়। এরপর প্রসাবের চাপ কম থাকলেও শুধু এই শব্দের মাধ্যমে শিশুরা প্রসাব করে ফেলে।পানি পরার শব্দ শুনে বড়দের প্রসাব করার ইচ্ছা করে কেন?

শিশিশিশি শব্দ করলে বা শিস দিলে শিশুরা প্রসাব করে কেন?
শিশিশি শব্দ করলে বা শিস দিলে শিশুরা প্রসাব করে কেন?

পানি পরার শব্দ শুনে বড়দের প্রসাব করার ইচ্ছা করে কেন?

নিজে যখন প্রসাব করি তখন মাটিতে বা টয়লেটে প্রসাব জমা হয়ে একটা কলকল শব্দ হয় যা পানি পতনের শব্দের মত।
দীর্যদিন এই শব্দ শুনে মস্তিষ্ক এটিকে সংরক্ষণ করে রাখে, তাই যখনি পানি পতনের শব্দ কানে যায় তখনি আমাদের প্রসাব করার চাপ অনুভূত হয়।
আপনি শুনলে অবাক হবেন যে জাপানের কিছু স্থানের টয়লেট গুলোতে ঢুকলেই পানি পতনের শব্দ শোনা যায় যাতে আপনার প্রসাবের চাপ সৃষ্টি হয়।

শিস দিলে বাচ্চারা প্রসাব করে কেন?

যে কারণে শি শি শি শব্দ করলে বাচ্চারা প্রসাব করে সেই কারণে শিস দিলে বাচ্চারা প্রসাব করে।

হিস হিস শব্দ করলে বাচ্চারা প্রসাব করে কেন?

উত্তর একই।

সিসিসি শিস শব্দ করলে বাচ্চারা হিসু করে কেন?

ssssh sound korle baby hisu kore keno? si si si sobdo korle bachara prosub kore keno?

why children urinating by ssssh sound?

children urinate by sssh sound cause of condition reflex .

Please Click on Just one Add to help us

মহাশয়, জ্ঞান বিতরণের মত মহৎ কাজে অংশ নিন।ওয়েবসাইট টি পরিচালনার খরচ হিসেবে আপনি কিছু অনুদান দিতে পারেন, স্পন্সর করতে পারেন, এড দিতে পারেন, নিজে না পারলে চ্যারিটি ফান্ডের বা দাতাদের জানাতে পারেন। অনুদান পাঠাতে পারেন এই নম্বরে ০১৭২৩১৬৫৪০৪ বিকাশ,নগদ,রকেট।

এই ওয়েবসাইট আমার নিজের খরচায় চালাই। এড থেকে ডোমেইন খরচই উঠেনা। আমি একা প্রচুর সময় দেই। শিক্ষক হিসেবে আমার জ্ঞান দানের ইচ্ছা থেকেই এই প্রচেষ্টা। আপনি লিখতে পারেন এই ব্লগে। এগিয়ে নিন বাংলায় ভালো কিছু শেখার প্রচেষ্টা।