উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য

Table Of Contents
  1. উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য
  2. উটের গায়ে পানি পরলে কি ঘাঁ হয়?

উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য

“উট মরুভূমির জাহাজ” এই তথ্য শিশু থেকে শুরু করে বৃদ্ধ সবাই জানে, এমনকি উটও বোধহয় জানে হা! হা! দিনে প্রখর রোদে উত্তপ্ত বালুতে চলাচল এবং রাতে তিব্র ঠাণ্ডা সহ্য করে বেঁচে থাকার মত বৈশিষ্ট্য অর্জন করতে পেরেছে খুব কম সংখ্যক প্রাণী।

এই বৈশিষ্ট্যের পাশাপাশি দীর্ঘদিন অন্নজল না খেয়ে কঠোর পরিশ্রম করার সক্ষমতা অর্জনকারী প্রাণী হিসেবে উট প্রাণিজগতের বিস্ময়কর সৃষ্টি। বহুবছরের বিবর্তনের ফলে উটের শরীরে এই বিস্ময়কর পরিবর্তনগুলো অর্জিত হয়েছে।

উট সম্পর্কে আপনি কতটা জানেন? উট সম্পর্কে বিস্ময়কর তথ্য আপনার খুব কমই জানা আছে যা জানলে আপনার চোখ কপালে উঠতে বাধ্য। তাহলে আসুন জানাযাক উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য…..

আপনি আরও পড়তে পারেন…. উট সাপ খায় কেন?

উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য
উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য

উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য

উট পানি ছাড়া কতদিন বাঁচে?

উট প্রায় দুই মাস পানি পান না করেও বেঁচে থাকতে পারে। এটা একদম মিথ্যা কথা। আসল সত্য হলো- উট স্বাস্থবান হলে প্রায় ১৫দিন পানি না খেয়ে বাঁচতে পারে।
পরিশ্রম না করে উট পানি ছাড়া সর্বোচ্চ ৩৪ দিন বাঁচতে পারে।শরীরের মোট ওজনের ২৫ শতাংশ কমে না যাওয়া পর্যন্ত উট পানির অভাব সহ্য করে নিতে পারে।
অথচ যেখানে অন্য স্তন্যপায়ীরা ১২-১৫ শতাংশ ওজন কমে গেলেই হৃদপিণ্ড বিকল হয়ে যাবার মতো জটিলতায় পড়ে।

উটের লোম তাপ বিকিরণ করে

উটের ঘন লোম আলো বিকিরণ করে এর ত্বক কে সূর্য থেকে বাঁচিয়ে রাখে। এই লোমগুলো গ্রীষ্মে আরো বেশি আলো বিকিরণ করে।এটি উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য

উটের শক্তিশালি পা

উটের লম্বা চিকন পাগুলো ডিজাইন করা হয়েছে এমনভাবে যাতে তারা গরম বালু থেকে অনেক উপরে থাকে। যদিও তাদের পা চিকন কিন্তু তা অনেক শক্তিশালি, এবং তা ১ হাজার পাউন্ড (৪৫৩ কেজি) ওজন বয়ে নিতে পারে।

উটের জুতা

উটের চ্যাপ্টা পায়ের তালুতে স্পঞ্জ জুতার মত প্যাড যা উটকে বালুতে তলিয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করে।
পায়ের তলার বিশেষ প্যাড উটের পা কে কাঁটা ফোটার হাত থেকে রক্ষা করে। উটের বুকে ও হাটুতে বিশেষ ধরণের শক্ত প্যাড থাকে এর ফলে এরা খুব সহজে মরুভূমির গরম বালুর উপর বসে থাকতে পারে।

উট নাক বন্ধ রাখতে পারে

উটের শরীরে বিশেষ কিছু বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা তাকে মরুভূমির ধূলিঝড় থেকে রক্ষা করে যেমন- কপাটিকা বিশিষ্ট নাসারন্ধ্র , লম্বা চোখের পাতার লোম, এবং কানের চুল।
তারা চাইলে নাকের ফুটোও বন্ধ করে ফেলতে পারে। তাই বালির ঝড় এলেও উটের বিশেষ অসুবিধা হয় না হাঁটাচলা করতে।(উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য)

উটের অভিযোজন
উটের অভিযোজন

উটের দৌড়

উটের দৌড়ের গতি ঘণ্টায় ৪০ মাইল। এরা ২৫ মাইল বেগে অনেক্ষণ একটানা দৌড়াতে পারে।

উটের অবাক জলপান

উট একবারে চল্লিশ গ্যালন পানি পান করতে পারে। এই পরিমান পানি একবারে অন্য প্রাণী পান করলে রক্ত কণিকা ফেটে মারা যেত। কিন্তু উটের রক্ত কণিকা সুরক্ষা প্রাচীর দিয়ে আবৃত।তাই তেমন কিছু হয় না।

হট এন্ড কোল্ড

উটের দেহের তাপমাত্রা ৩৪-৪১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।যেখানে মানুষের ৩৬-৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ৪১ ডিগ্রির উপরে গেলে উট ঘামতে শুরু করে।৫৩ ডিগ্রি গরম এবং মাইনাস-১ ডিগ্রি শীতেও উট টিকে থাকে।

তিন পাতাওয়ালা চোখ

উটের চোখে ৩ টি পাতা থাকে যা মরুঝড়ের সময় বালির হাত থেকে রক্ষা করে।২য় পাতাটি যাকে বলা হয় ‘নিকটিটেটিং মেমব্রেন’ এটা স্বচ্ছ। পাখি ও সরীসৃপ প্রাণির এই মেমব্রেন থাকে।

উটের-চোখের-পাতা
উটের-চোখের-পাতা

বিশেষ ধরণের RBC

স্তন্যপায়ী প্রাণির মধ্যে শুধু উটের লোহিত কণিকায় নিউক্লিয়াস থাকে।

কাঁটা খেতে ভারি মজা

উটের মুখ গহ্বরে শক্ত প্যাড থাকে ফলে খুব সহজে এরা কাঁটা জাতীয় উদ্ভিদ যেমন ক্যাকটাস চিবিয়ে খেতে পারে।উটের উপরের ঠোঁট বিভক্ত যা তাদেরকে মরুভূমির শক্ত গাছ জাতীয় খাবার খেতে সাহায্য করে।

উটের প্রকারভেদ

পৃথিবীজুড়ে দুই ধরনের উট আছে। একটি হলো এক কুঁজ বিশিষ্ট এটি আরবদেশে বেশি পাওয়া যায়। অন্যটি দুই কুঁজ বিশিষ্ট উট এটি এশিয়াতে পাওয়া যায়। উদাহরণ- ভারতের রাজাস্থান মরুভূমির দুই কুঁজ বিশিষ্ট উট।

উটের-প্রকারভেদ
উটের-প্রকারভেদ

উটের গর্ভকাল কত?

উটের বাচ্চা মায়ের পেটে থাকে প্রায় ১৪ মাস।

উট পানি কোথায় জমা রাখে?

লোহিত রক্ত কণিকা, পরিপাক নালি ও পেশি কোষে উট পানি জমা রাখে। উট হিসেব করে পানি খরচ করে এবং পানির অপচয় রোধ করতে পারে।
যেমন- খুব অল্প পরিমাণ মূত্র ত্যাগ করে,খুবই কম ঘামে, মরুভূমির প্রাণিদের নিঃশ্বাসের সাথে প্রচুর পানি বাষ্পাকারে বের হয়ে যায় কিন্তু উটের নিঃশ্বাসে খুব কম পানি বের হয় কারণ উটের নাসাপথ বেশ প্যাঁচানো ও নাকের ছিদ্র কপাটিকা যুক্ত এর ফলে নিঃশ্বাসের সাথে যে পানি থাকে তা পুনঃরায় শোষিত হয়।

উটের কুঁজে কি পানি থাকে?
উট পানি কোথায় জমা রাখে?

উটের কুঁজে কি পানি থাকে?

উটের কুজে পানি থাকে না। এটি চর্বির ডিপো। এতে ৪০ কেজি চর্বি জমা থাকে। যখন খাদ্যের অভাব হয় তখন উট এই কুজ থেকে চর্বি ভেঙ্গে খাদ্যের অভাব মেটায়। এই জমানো চর্বি দিয়ে উট প্রায় ১ মাস পর্যন্ত খাদ্যের অভাব মেটাতে পারে।
কুঁজের চর্বি ভেঙ্গে যখন শক্তি উৎপন্ন হয় তখন উপরিপাওনা হিসেবে প্রচুর পানি উৎপন্ন হয়।একারণে পানির অভাব কিছুটা লাঘব হওয়ার কথা। এক গ্রাম চর্বি গলে প্রায় এক গ্রামের বেশি পানি তৈরি হয়। কথা মিথ্যা নয়।
কিন্তু আরো সত্য হলো, এটি উটের পানি তৈরির কাজে আসে না।কুঁজে চর্বি জমাতে বরং তার বেশি পানি খরচ করতে হয়। উটের কুঁজে কি পানি থাকে?এবার আপনি কি উত্তর দিবেন?

উটের গায়ে পানি পরলে কি ঘাঁ হয়?

দুইদিন আগে টিপ টিপ বৃষ্টি তে মাথায় রুমাল দিয়ে সি,এন,জি তে উঠলাম। ড্রাইভার মুচকি হাসি দিয়ে বলল ,আজকের পোলাপান হলো আজাইরা ঢং।উটের চামরাতে পানি পরলে যেমন ঘা হয়, এদের ও তাই অল্প বৃষ্টিতে ঘা হয়।

অপমান বোধ হলেও গায়ে মাখলাম না, আমার স্বভাব তেলতেলা অপমান সহজে গায়ে লাগেনা।যাইহোক সাহস করে প্রশ্ন করলাম, আপনি সত্যি জানেন উটের গায়ে পানি পরলে কি ঘাঁ হয়?

ড্রাইভারের উত্তর, অবশ্যই জানি, বাংলাদেশে উট পালন করলেও তার গায়ে বৃষ্টি যাতে না পরে সেজন্য সবসময় ছাদের নিচে রাখতে হয়।আমি বললাম, আপনি কি দেখেছেন?

এবার ড্রাইভার প্রায় হুংকার দিয়ে আমাকে চিকন কালো কারো সাথে তুলনা করে বললো,দেখেছি মানে এটাতো সবাই জানে। গোদের উপর বিষফোঁড়ার মত এক মুরব্বী তার সমর্থক হয়ে আমাকে পুরোপুরিভাবে মুরগির ছাও বানিয়ে ফেলল।

মোরালঃ বাংলাদেশে দেখার চাইতে শোনার মূল্য বেশী।
আসুন সত্যি তথ্য জানাযাক,

উটের গায়ে পানি পরলে কি ঘাঁ হয়?
উটের-গোসল

উটের গায়ে পানি পরলে ঘাঁ হয় কি?

উটের চামরা মোটা, ঘন লোমে ঢাকা।মরুভূমির তাপ থেকে বাচার জন্য এই ত্বক উপকারী।
তবে অত্যধিক স্যাঁতস্যাঁতে ভেজা আবহাওয়া উট পছন্দ করে না এবং এই ধরনের আবহাওয়া উটের স্বাস্থের জন্য ক্ষতিকর। তাইবলে বৃষ্টির পানি উটের চামরায় পরলে ঘা হবে এমন কথার কোন ভিত্তি নেই।
উটের গায়ে শুধু বৃষ্টির পানি নয় যেকোন পানি পরলে ঘাঁ হয় না। প্রমাণস্বরূপ সৌদি আরবের কথা বলা যায়। সৌদিআরবে অনেক সময় তিব্র বৃষ্টিপাত হয় এই বৃষ্টিতে উট বেশ স্বচ্ছন্দে গোসল করে।
আবার বংলাদেশে কুরবানির জন্য উট আমদানি করলে তাদের গোসল করানো হয়। উটের গায়ে পানি পরলে উট বেশ আরামে তা উপভোগ করে।

কিছু প্রশ্ন ও উত্তর

উট কিভাবে মরুভূমিতে টিকে থাকে?

দীর্ঘ সময় ধরে বিবর্তিত হয়ে উট মরুভূমিতে টিকে থাকার ক্ষমতা অর্জন করেছে। এদের কিছু মরুজ অভিযোজন দেখা যায়। এই মরুজ অভিযোজনের ফলেই উট মরুভূমিতে টিকে থাকতে পারে।

উটের মরুজ অভিযোজন কী?

উটের মরুজ অভিযোজন গুলো হলো- কুঁজ, ৩ পর্দা বিশিষ্ট চোখের পাতা, পায়ের নরম প্যাড, কাঁটা খাওয়ার জন্য বিশেষ মুখ ইত্যাদি।

কোন স্তন্যপায়ী প্রাণির লোহিত কণিকায় নিউক্লিয়াস আছে?

উটের লোহিত কণিকায় নিউক্লিয়াস আছে।

amazing facts about camel in bangla
how do camels survive in the desert in bangla. camel hump bangla. how many dayes camel live without water bangla. utt pani sara kotodin bache? utt er ojana tottho. utt kothay pani joma rakhe? utt er kuj,camel desert adaptation in bangla.

Please Click on Just one Add to help us

মহাশয়, জ্ঞান বিতরণের মত মহৎ কাজে অংশ নিন।ওয়েবসাইট টি পরিচালনার খরচ হিসেবে আপনি কিছু অনুদান দিতে পারেন, স্পন্সর করতে পারেন, এড দিতে পারেন, নিজে না পারলে চ্যারিটি ফান্ডের বা দাতাদের জানাতে পারেন। অনুদান পাঠাতে পারেন এই নম্বরে ০১৭২৩১৬৫৪০৪ বিকাশ,নগদ,রকেট।এই ওয়েবসাইট আমার নিজের খরচায় চালাই। এড থেকে ডোমেইন খরচই উঠেনা। আমি একা প্রচুর সময় দেই। শিক্ষক হিসেবে আমার জ্ঞান দানের ইচ্ছা থেকেই এই প্রচেষ্টা। আপনি লিখতে পারেন এই ব্লগে। এগিয়ে নিন বাংলায় ভালো কিছু শেখার প্রচেষ্টা।

tag: উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য উটের আশ্চর্যজনক অজানা তথ্য