ক্যান্সারের লক্ষণ কী? ক্যান্সারের ২৫ টি লক্ষণ দেখে নিন#

Table Of Contents
  1. ক্যান্সারের লক্ষণ কী? ক্যান্সারের ২৫ টি লক্ষণ দেখে নিন#
  2. ক্যান্সার সনাক্তের ২৫টি উপায়

ক্যান্সারের লক্ষণ কী? ক্যান্সারের ২৫ টি লক্ষণ দেখে নিন#

ক্যান্সার ছড়িয়ে পরার আগে দেহে কিছু সাধারণ লক্ষণ প্রকাশ করে নিজের উপস্থিতি জানানন দেয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই আমরা এই লক্ষণগুলো অবহেলা করি সাধারণ অসুখ ভেবে। কিন্তু ক্যান্সার কোষগুলো ছড়িয়ে পরার পর লক্ষণগুলো প্রকট আকার ধারণ করলে আমরা হাহুতাশ করে বলি আহ্ আর একটি আগে জানলে হয়তো ভালো হতো জীবন ও অর্থ দুটোই বেঁচে যেত।

কারণ প্রাথমিক পর্যায়ে ক্যান্সার ধরা পরলে নিরাময় সম্ভব কিন্তু চূড়ান্ত পর্যায়ে ধরা পরলে নিরাময়ের সম্ভাবনা খুবই কম। তাই আসুন সময় থাকতে সচেতন হই ক্যান্সারের ২৫ টি লক্ষণ সম্পর্কে জেনে নেই।

আপনি আরো পড়তে পারেন ………………………….. ক্যান্সার কী? ক্যান্সার কিভাবে সৃষ্টি হয়?ক্যান্সারের লক্ষণ, কারণ ও চিকিৎসা: …………. ক্যান্সার রোগির মৃত্যুর লক্ষণ গুলো কি?

ক্যান্সারের ২৫ টি লক্ষণ

ধরণভেদে ক্যান্সারের লক্ষণ আলাদা হয়। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে কিছু সাধারণ লক্ষণ দেখা যায়। সাধারণ লক্ষণগুলো হলো-

ক্যান্সারের লক্ষণ কী? ২৫ টি লক্ষণ দেখে বুঝুন ক্যান্সার হয়েছে কি না?
ক্যান্সারের লক্ষণ কী?

ক্যান্সার সনাক্তের ২৫টি উপায়

১) সবসময় ক্লান্ত অনুভব করা

প্রচুর খাওয়াদাওয়া করা সত্ত্বেও বেশিরভাগ সময় ক্লান্ত অনুভব করা হতে পারে ক্যান্সারের লক্ষণ। কোন কাজ করতে মন চায় না শুধু শুয়ে বসে থাকতে ভালো লাগে। শরীর সবসময় বিছানার সাথে লেগে থাকতে চায়। একটু কাজ করলেই দেহে রাজ্যের ক্লান্তি ভর করে। সবসময় ঘুমঘুম ভাব থাকে চোখে।মলাশয় বা রক্তে ক্যান্সারের ক্ষেত্রে এই উপসর্গ বেশি দেখা যায়।

২) হঠাৎ ওজন হ্রাস পাওয়া

ওজন কমানোর চেষ্টা না করেও হঠাৎ করে দেহের ওজন কমে যাওয়া ক্যান্সারের অন্যতম লক্ষণ। এসময় ভালোভালো পুষ্টিকর খাবার খেলেও ওজন কমতেই থাকে। অনেক সাপ্লিমেন্টারী ফুড খেয়েও ওজন বাড়ে না। ক্যান্সারের লক্ষণ গুলোর মধ্যে এটি একটি স্পষ্ট লক্ষণ। তাই দ্রুত ডাক্তার দেখান ক্যান্সার স্ক্রিনিং করুন, অবহেলা করবেন না ক্যান্সারের লক্ষণটি।

৩) লম্বা সময় ধরে ব্যথার উপস্থিতি

আঘাত না লাগলেও লম্বা সময় ধরে শরীরের কোন অঙ্গে ব্যথার উপস্থিতি ক্যান্সারের লক্ষণ।কোন ওষুধও এই ব্যথার নির্মূল করতে পারে না। শরীরের কোন জায়গায় ব্যথা হচ্ছে, তার ওপর নির্ভর করে রোগীর কোন ক্যান্সার হয়েছে।সাধারণত ব্রেইন টিউমার বা মলাশয়ের ক্যান্সারে এমন লক্ষণ দেখা যায়।

৪) অস্বাভাবিক মাংসপিণ্ড:

কোন দুর্ঘটনা ছাড়া দেহের কোন স্থানে অস্বাভাবিক কোনও মাংসপিণ্ডের উপস্থিতি কিন্তু ক্যান্সারের উপসর্গ হতে পারে। এই মাংসপিণ্ড ব্যথাবিহীন হয়ে থাকে। সময়ের সাথে সাথে পিণ্ডটি বড় হতে থাকলে বা স্থান পরিবর্তন করতে থাকলে আর দেরি করবেন না দ্রুত পরীক্ষা করান।

৫) ঘন ঘন জ্বর:

জ্বর কোন ররোগ নয় এটা যে কোনও রোগের উপসর্গ নির্দেশ করে। ক্যান্সার কোষ কোন অঙ্গে বিস্তার লাভ করলে শরীরের স্বাভাবিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় ফলে নিরীহ জীবাণুর আক্রমণে নষ্ট করে দেয়। এতে দেখা দেয় ঘন ঘন জ্বর । ঘন ঘন জ্বর ব্ল্যাড ক্যান্সার-এর লক্ষণ বুঝতে হবে।

৬) ত্বকে পরিবর্তন:

ত্বকে হঠাৎ অনেকগুলো তিল বা আঁচিলের সৃষ্টি হওয়া কেরাটোসিসের লক্ষণ। ত্বক ক্যান্সারের একটি লক্ষণ হতে পারে এটি। তাই ত্বকে অতিরিক্ত তিল বা ফ্রিকেল অথবা আঁচিলের বিষয়টি খেয়াল রাখুন।

৭) দীর্ঘস্থায়ী কাশি:

কাশির সাথে রক্ত যাওয়া
কাশির সাথে রক্ত যাওয়া

যক্ষা,ব্রঙ্কাইটিস, হাঁপানি রোগে আক্রান্ত না হয়েও দীর্ঘদিন কাশিতে ভোগা এবং বুকে ব্যথা ফুসফুসের ক্যান্সারের কারণ হতে পারে। কাশির সাথে রক্তের উপস্থিতি আরও বড় লক্ষণ। ওষুধ খাবার পরও কাশি, কাশির কারণে বুক, পিঠ বা কাঁধের ব্যথা ভালো না হলে বক্ষব্যাধি চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

৮) মল-মূত্রত্যাগের অভ্যাসে পরিবর্তন

একটু পরপর মল-মূত্রের বেগ অনুভব করা, ঘন ঘন ডায়রিয়া বা কোষ্ঠকাঠিন্য হওয়া মলাশয়ের ক্যান্সারের লক্ষণ। প্রসাবের সময় পোটব্যথা বা প্রসাবের সাথে রক্তযাওয়া মূত্রথলির ক্যান্সারের লক্ষণ।

৯) অস্বাভাবিক রক্তপাত

যক্ষা রোগ না হলেও যদি কাশির সাথে রক্ত বেড় হয় তবে এটা ক্যান্সারের একটা বড় লক্ষণ। মাসিক ছাড়াই যোনিপথে রক্তপাত বা মলের সাথে রক্তের উপস্থিতি জরায়ুমুখ ও কোলন ক্যান্সারের উপসর্গ।

১০) ক্ষুধামান্দ্য

একটানা অনেকদিন ধরে ক্ষুধামান্দ্য যদি গ্যাস্ট্রিক,অজীর্ণতা বা আলসারের কারণে না হয় এবং চিকিৎসায় ভালো না হয় তবে এটা পরিপাকতন্ত্রের ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে।

১১) অনিয়মিত ঋতুস্রাব

অনিয়মিত ঋতুস্রাব ও তল পেটে প্রচুর যন্ত্রণা হওয়া মেয়েদের একটি সাধারণ মেয়েলী সমস্যা ওষুধে এই ব্যথা উপশম সম্ভব। তবে চিকিৎসা করার পরেও দীর্ঘদিন এই সমস্যা চলতে থাকলে এটাকে জরায়ুমুখ ও ডিম্বাশয় ক্যান্সারের লক্ষণ ধরা হয়।

১২) দীর্ঘদিন পেটে ব্যথা ও বমি বমি ভাব

বিভিন্ন কারণে পেটে ব্যথা ও বমি ভাব হতে পারে। তবে দুই সপ্তাহের বেশি এই সমস্যা চলতে থাকলে ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া দরকার। কারণ এই সমস্যাগুলি অগ্নাশয় অথবা লিভার ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে।

১৩)দীর্ঘদিন মাথাব্যথা

মাথাব্যথা
মাথাব্যথা

সাইনুসাইটিস বা মাইগ্রেনের কারণে প্রচন্ড মাথা ব্যথা হয়। তবে একনাগাড়ে দুই সপ্তাহের বেশি সময় ধরে মাথা ব্যথা করলে এটি ব্রেইন টিউমারের লক্ষণ হতে পারে।

১৪) শ্বেত রক্ত কণিকার বৃদ্ধি

রক্তে শ্বেত রক্ত কণিকার পরিমাণ অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যাওয়া লিউকেমিয়া বা ব্লাড ক্যানসারের লক্ষণ।সাধারণত ১ ঘন মিলি রক্তে শ্বেত কণিকা থাকে ৫-৮ হাজার কিন্তু লিউকেমিয়া হলে এই সংখ্যা ১ লক্ষ অতিক্রম করতে পারে।

১৫) খাবার গিলতে অসুবিধা

খাদ্যনালী শুকনা থাকলে বা অনেক্ষণ অভুক্ত থাকার পর খাবার খাওয়ার সময় খাবার গিলতে অসুবিধা হওয়া এটা স্বাভাবিক কিন্তু কোন কারণ ছাড়াই সপ্তাহে ৪-৫ দিন এমন হতে থাকলে এটা কিন্তু ফুসফুসে ক্যান্সার বা খাদ্যনালির ক্যানসারের প্রথম ধাপ হতে পারে৷

১৬) গ্রন্থি ফুলে যাওয়া

লিম্ফ গ্লান্ড ফুলে যাওয়া
লিম্ফ গ্লান্ড ফুলে যাওয়া

বগল,উরুসন্ধি,চোয়ালের নিচে,গলার পাশে লসিকা গ্রন্থি সামান্য ফুলা অবস্থায় থাকে,হাতদিয়ে চাপ দিলে এদের উপস্থিতি টের পাওয়া যায়। কিন্তু কোন কারণ ছাড়াই এই গ্রন্থিগুলো ফুলে গেলে এটাকে লিম্ফোমা বা লসিকা গ্রন্থির ক্যান্সারের লক্ষণ ধরে নেওয়া হয়।

১৭)তিল ও আচিলের পরিবর্তন

তিল বা আঁচিলের অস্বাভাবিক পরিবর্তন
তিল বা আঁচিলের অস্বাভাবিক পরিবর্তন

কোনো আঁচিল বা তিলের আকৃতি ক্রমাগত পরিবর্তন হতে থাকলে তা ত্বক ক্যান্সারের একটি লক্ষণ হতে পারে।যদি আঁচিলের রং ও আকার অস্বাভাবিকভাবে পরিবর্তন হতে দেখেন তবে অবিলম্বে ওনকোলোজিস্ট অথবা ডার্মাটোলজিস্ট এর সাথে কথা বলুন।

১৮) ত্বকের যে কোনও অংশে নীল দাগ

ত্বকে নীল দাগ
ত্বকে নীল দাগ

কোন কারণ ছাড়াই ত্বকের উপর দীর্ঘস্থায়ী নীল দাগ হতে পারে রক্ত ক্যান্সারের লক্ষণ। প্রতিনিয়ত সাবান দিয়ে ধুলেও এই দাগ উঠে না।

১৯) পা ফুলে যাওয়া

পা ফুলে যাওয়া
পা ফুলে যাওয়া

হঠাৎকরে পায়ের নিম্ন অংশ বা গোড়ালি ফুলে যাওয়া কিডনি বা মূত্রথলির ক্যান্সারের লক্ষণ। গর্ভাবস্থায় এমন ঘটনা স্কাভাবিক তাই ঘাবড়ে যাবেন না। কিডনি রোগীদের এটা প্রায় দেখা যায়। কিন্তু এসব অবস্থা ছাড়া হুটকরে পা ফুলে যাওয়া বিপদের লক্ষণ।

২০) রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাওয়া

সামান্য কারণে নিরীহ কোন জীবাণুর দ্বারা সহজে রোগে আক্রান্ত হওয়া রক্ত ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে।

২১) হাড়ের সংযোগস্থলে দীর্ঘমেয়াদী ব্যথা

হাড়ের জয়েন্টে ব্যথা
হাড়ের জয়েন্টে ব্যথা

কঠিন পরিশ্রমের কাজ, রিক্সা,ভ্যান,সাইকেল চলানো,ভাড়ি কিছু ওঠানো নামানো,অ্যাথলেটিক খেলা ইত্যাদি কারণে হাড়ের সংযোগস্থলে ব্যথা হয়। কিন্তু এসব কারণ ছাড়াও হারের জয়েন্টে দীর্ঘস্থায়ী ব্যথা অস্থি মজ্জার ক্যান্সারের লক্ষণ হতে পারে।

২২) ব্যথাবিহীন টিউমার সৃষ্টি হওয়া

ব্যথাবিহীন টিউমার
ব্যথাবিহীন টিউমার

ক্যান্সার কোষের অস্বাভাবিক বৃদ্ধির ফলে ত্বকের নিচে টিউমার সৃষ্টি হয়। টিউমার দুই ধরণের যথা ম্যালিগন্যান্ট ও বিনাইন টিউমার। ম্যালিগন্যান্ট টিউসার ক্যান্সার সৃষ্টি করে আর বিনাইন টিউমার নিরীহ। তবে বিনাইন টিউমার অনেক সময় সময়ের ব্যবধানে টিউমারে রূপ নেয়। একে প্রি ক্যান্সার বলে।টিউমার যতই ছোট হোক না কেন অবশ্যই স্ক্রিনিং করাবেন। মনেরাখবেন টিউমার ক্যান্সারের প্রথম ধাপগুলোর একটি নিদর্শন।

২৩) স্তনে শক্ত চাকার বস্তুর উপস্থিতি।

স্তনে শক্ত চাকার উপস্থিতি
স্তনে শক্ত চাকার উপস্থিতি

স্তনের নরম টিস্যুর মধ্যে হঠাৎ শক্ত চাকার মত বস্তুর উপস্থিতি স্তন ক্যান্সারের একটি সাধারণ নিদর্শন। এই চাকা বস্তু ব্যথাহীন। সময়ের সাথে সাথে এর আয়তন ও শক্তভাব বাড়ে।

২৪) বগলে শক্ত পিণ্ডের অস্তিত্ব অনুভব করা।

বগলে শক্ত পিণ্ডের উপস্থিতি স্তন ও জরায়ুমুখ ক্যান্সারের লক্ষণগুলোর একটি। যদি পিণ্ডটি পেকে বের গয়ে যায় তবে এটা ভয়ের কিছু না। কিন্তু এরকম না হলে অবশ্যই ভীতিকর।

২৫) গলার স্বর পরিবর্তন হয়ে যাওয়া।

হঠাৎ গলার স্বর পরিবর্তন হওয়া যেমন মোলায়েম সুরেলা কণ্ঠ কর্কশ হয়ে যাওয়া,কর্কশ কণ্ঠ ফ্যাঁসফ্যাসে হয়য়ে যাওয়া,দীর্ঘ মেয়াদী গলা ভেঙ্গে যাওয়া ফুসফুস ক্যান্সারের একটি লক্ষণ।

সতর্কতা

অনেক সাধারণ রোগের উপসর্গ হতে পারে উপরের লক্ষণগুলো।আবার চিকিৎসার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণে হতে পারে। তাই লক্ষণগুলো দেখে নিজে নিজে হতাশ হবেন না,চিন্তায় ডুবে যাবেন না বা ক্যান্সার হয়েছে ভেবে নিজেই ক্যান্সারের চিকিৎসা শুরু করবেন না। অনেকে লক্ষণগুলো নিজের দেহে আবিষ্কারের পর ক্যান্সার হয়েছে আর বাঁচবেন না এই ভেবে চিকিৎসা করাবেন না এটা ভাববেন না।

সাধারণত এসব উপসর্গকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হয় না। কিন্তু লক্ষণগুলো দেখে ক্যান্সারের ভয়ে ডাক্তার দেখালে আসল রোগ সনাক্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে এবং উপযুক্ত চিকিৎসার দ্বারা রোগ মুক্তির সম্ভাবনা তৈরি হয়। তাই রোগের উপসর্গগুলোকে অবহেলা না করাই ভালো।

ক্যান্সারের লক্ষণ কী?

হঠাৎ গলার স্বর পরিবর্তন হওয়া যেমন মোলায়েম সুরেলা কণ্ঠ কর্কশ হয়ে যাওয়া,কর্কশ কণ্ঠ ফ্যাঁসফ্যাসে হয়য়ে যাওয়া,দীর্ঘ মেয়াদী গলা ভেঙ্গে যাওয়া ফুসফুস ক্যান্সারের একটি লক্ষণ।

তত্থসুত্ত্রঃ cancer.org, …………… cancer.net USA

25 sign of cancer in bangla

25 symptoms of cancer in bangla, cancer er lokkhon ki? kivabe bujhben cancer hoese? cancer bojhar upay,

Tag: ক্যান্সারের লক্ষণ…. ক্যান্সারের লক্ষণ….. ক্যান্সারের লক্ষণ…. ক্যান্সারের লক্ষণ….. ক্যান্সারের লক্ষণ…. ক্যান্সারের লক্ষণ…. ক্যান্সারের লক্ষণ…..

Please Click on Just one Add to help us

মহাশয়, জ্ঞান বিতরণের মত মহৎ কাজে অংশ নিন।ওয়েবসাইট টি পরিচালনার খরচ হিসেবে আপনি কিছু অনুদান দিতে পারেন, স্পন্সর করতে পারেন, এড দিতে পারেন, নিজে না পারলে চ্যারিটি ফান্ডের বা দাতাদের জানাতে পারেন। অনুদান পাঠাতে পারেন এই নম্বরে ০১৭২৩১৬৫৪০৪ বিকাশ,নগদ,রকেট।

এই ওয়েবসাইট আমার নিজের খরচায় চালাই। এড থেকে ডোমেইন খরচই উঠেনা। আমি একা প্রচুর সময় দেই। শিক্ষক হিসেবে আমার জ্ঞান দানের ইচ্ছা থেকেই এই প্রচেষ্টা। আপনি লিখতে পারেন এই ব্লগে। এগিয়ে নিন বাংলায় ভালো কিছু শেখার প্রচেষ্টা।

DMCA.com Protection Status