ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার|ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায় ২০ খাবার#

ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার|ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায় ২০ খাবার#

খাবার ছাড়া তো আমাদের এক মুহূর্ত চলে না। জীবন বাঁচানোর জন্য খাবার খাই আবার অনেকে খাওয়ার জন্যে বেঁচে থাকি। খাবার যেমন বাঁচিয়ে রাখে তেমনি জীবন কেড়ে নেয়। কিছু খাবার বেশি খাওয়ার ফলে ক্যান্সার নামক মারণ ব্যাধি সৃষ্টি হয়। আসুন আজ খুঁজে বের করি সেই দুষ্টু খাবার গুলিকে। পড়তে থাকুন…
ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার|ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায় ২০ খাবার#

ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার|ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায় ২০ খাবার#
ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার

আপনি আরো পড়তে পারেন ………… ক্যান্সার রোগীর খাদ্য তালিকা| ….. ক্যান্সার রোগীর নিষিদ্ধ খাবারকান্সারের ঝুঁকি কমায় এই ১৫ টি ফল#

ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার

কোন খাবার খেলে ক্যান্সার হয়?

পুড়ে কালো হওয়া খাবার,বেকড খাবার,ফ্রাই ফুড,বারবিকিউ এই ২০ খাবার ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়

এই ২০ খাবার ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়

ক্যান্সার সৃষ্টিকারী এই ২০ টি খাবার চিনে রাখুন ক্যান্সারের ঝুঁকিমুক্ত মুক্ত থাকুন।

রঙিন কোল্ড ড্রিংকস

কোল্ড ড্রিংকস আমরা হরহামেশাই খেয়ে থাকি। স্বাভাবিক বর্ণহীন কোল্ড ড্রিংকস মাঝেমধ্যে পান করলে কোন সমস্যা নেই। কিন্তু বেশি মাত্রায় কালারফুল কোল্ড ড্রিংকস পান করা উচিত নয়,কারণ এটি রঙ করার জন্য ক্যারামেল ব্যবহার করা হয়। ক্যারামেল পোড়া চিনি দিয়ে তৈরি পদার্থ।গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, ক্যারামেলে 4-MEI নামক রাসায়নিক পদার্থ থাকে। 4-MEI একটি ক্যান্সার উৎপাদক বা কার্সিনোজেনিক পদার্থ।

যতটা সম্ভব কোল্ড ড্রিংকস কম পান করুন। লিভার ও পরিপাকনালীর ক্যান্সার হতে পারে এই খাবার অতিরিক্ত খেলে। ওজন কমাচ্ছেন বা ডায়াবেটিস রোগী উপকারী ভেবে ডায়েট কোক খাবেন না এটি আরো ক্ষতিকর।

খাবারের নামক্ষতিকর উপাদানক্যান্সারের নাম
রঙিন কোল্ড ড্রিংকস 4-MEI নামক রাসায়নিক পদার্থ লিভার ও পরিপাকনালীর ক্যান্সার

গ্রিল চিকেন ও বারবিকিউ মাংস

মাংস গ্রিল এবং বারবিকিউ করার সময় এটি পুড়ে কালো হয়ে যায়। এই পোড়া মাংসে ক্ষতিকারক polycyclic aromatic hydrocarbons(PAHs) এবং heterocyclic amines(HCA) তৈরি হয় এটি কোষের ডিএনএ স্টাকচার পরিবর্তন করতে পারে। ডিএনএ স্ট্রাকচার পরিবর্তন হলে দেহে সহজেই ক্যান্সার কোষ উৎপন্ন হয়।মাংসের চর্বি তাপে গলে যায় এবং তরকারির ঝোলে মিশে যায়,কিন্তু মাংস পোড়ানো হলে চর্বি সরাসরি গলে গিয়ে বাষ্প হয়ে যায় এবং এর হাইড্রোকার্বন ক্ষতিকারক polycyclic aromatic hydrocarbons সৃষ্টি করে।

এটি ক্যান্সার উৎপন্নকারী পদার্থগুলোর মধ্যে একটি। লিভার,পাকস্থলী ও কোলন ক্যান্সারের অন্যতম কারণ হতে পারে এই পোড়া মাংস। তাই ৩ মাসে একবারের বেশি গ্রিল মাংস খাবেন না। যতটা সম্ভব সেদ্ধ মাংস খান। মাছ ভাজার সময় একদম কালো করে ফেলবেন না।

খাবারের নাম ক্ষতিকর উপাদান ক্যান্সারের নাম
গ্রিল চিকেন ও বারবিকিউ মাংস polycyclic aromatic hydrocarbons(PAHs) এবং heterocyclic amines(HCA) লিভার,পাকস্থলী ও কোলন ক্যান্সার
তথ্যসূত্র : Dr. Stephen Freedland, director of the Center for Integrated Research in Cancer and Lifestyle (CIRCL).

মাইক্রোওয়েভ ওভেনে ভাজা পপকর্ন

ভুট্টা তেল বা মাখন ছাড়া সাধারণ চুলা বা মেশিনে তাপদিয়ে গরম করে যে পপকর্ন বানানো হয় সেটা স্বাস্থ্যকর। কিন্তু তেল বা মাখন দিয়ে মেখে ওভেনে পপকর্ন বানালে এই মাখন সরসরি বাষ্প হয়ে diacetyl তৈরি করে। এটি কার্সিনোজেনিক পদার্থ কোলন ক্যান্সারের কারণ হতে পারে এই ধরণের পপকর্ন।

কৌটাজাত খাবার বা Canned Food

বাজারে কৌটাজাত খাবার বাংলাদেশে খুব কমই খাওয়া হয়। খাবার যে কৌটায় সংরক্ষণ করা হয় তার ভেতরের আবরণ অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে তৈরি। খাবারের সাথে রাসায়নিক বিক্রিয়ার ফলে অ্যালুমিনিয়াম থেকে bisphenol A-based epoxy (BPA) তৈরি হয়। এটি মারাত্মক বিষাক্ত কার্সিনোজেনিক পদার্থ। এই বিষাক্ত পদার্থ সরাসরি স্তন ক্যান্সারের সাথে সম্পর্কযুক্ত।কৌটাজাত টমেটো একদম খাবেন না এটি মারাত্মক বিষাক্ত।

কৌটাজাত আচার বেশিদিন হয়ে গেলে আর খাবেন না।বিশ্বে বিখ্যাত ক্যানড ফুড প্রস্তুতকারী ২৫২ টি কোম্পানির মধ্যে মাত্র ১২% BPA-free ক্যান ব্যবহার করে।

খাবারের নাম ক্ষতিকর উপাদান ক্যান্সারের নাম
কৌটাজাত খাবার bisphenol A-based epoxy (BPA) স্তন ক্যান্সার
তথ্যসূত্র : University of Illinois Urbana-Champaign study

মার্জারিন(Margarine) বা ডালডা

অনেকে মাখনের বিকল্প হিসেবে মার্জারিন বা ডালডা ব্যবহার করে। কিন্তু ডালডা প্রচুর ক্ষতিকারক ট্রান্স ফ্যাট ধারণ করে। এটি হৃদরোগের জন্য মারাত্মক হুমকি।ডালডার প্রতি ১০০ গ্রাম নমুনায় গড়ে ১১ গ্রাম ট্রান্সফ্যাট পাওয়া গেছে, যেখানে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা প্রতি ১০০ গ্রামে সর্বোচ্চ ২ গ্রাম ট্রান্সফ্যাট গ্রহণের সুপারিশ করে।রান্নার তেলকে হাইড্রোকার্বন দিয়ে সম্পৃক্ত করলে ডালডা তৈরি হয়।

ডালডা দহন প্রক্রিয়ায় সহজে ক্ষতিকর polycyclic aromatic hydrocarbons সৃষ্টি করে এই হাইড্রোকার্বন ক্যান্সার উৎপন্ন করতে পারে। রান্নার তেল খাবারে মিশিয়ে বেশি সময় ফ্রাই করলে একই রকম হাইড্রোকার্বন তৈরি হয়।

খাবারের নামক্ষতিকর উপাদান ক্যান্সারের নাম
মার্জারিন(Margarine) বা ডালডা polycyclic aromatic hydrocarbons লিভার,পাকস্থলী ও কোলন ক্যান্সার

কৃত্রিমভাবে চাষ করা মাছ

মাছ চাষের পুকুরে মাছকে যে খাবার দেয়া হয় তা তৈরি করার সময় ভারি ধাতব পদার্থ যেমন- কোবাল্ট,নিকেল, ক্রোমিয়াম ইত্যাদি থাকে।দূষণের ফলে পুকুরের পানিতে persistent organic pollutants (POP) উৎপন্ন হয়। এই পদার্থ সরাসরি ফুসফুস, গলা,রক্ত,লিভার,স্তন,পরিপাকনালীর ক্যান্সারের সাথে সম্পর্কিত।পুকুরে নিরাপদ খাবার সরবরাহ করা হলে মাছ ক্ষেতে নিষেধ নেই কারণ মাছের ওমেগা-৩ চর্বি ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে।

মাছের রোগ সারানোর জন্য অতিরিক্ত এন্টিবায়োটিক ব্যাবহার করা হলে তা মাছ খাওয়ার মাধ্যমে মানবদেহে প্রবেশ করে এবং দেহ কোষের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতার উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। এইসব মাছে dioxins এবং PCBs এর মত কার্সিনোজেনিক পদার্থ থাকে এগুলো অন্তঃক্ষরা গ্রন্থির ক্যান্সারের কারণ। চাষকৃত স্যামন মাছ খেতে নিষেধ করা হয়।

খাবারের নাম ক্ষতিকর উপাদান ক্যান্সারের নাম
কৃত্রিমভাবে চাষ করা মাছ persistent organic pollutants (POP) অন্তঃক্ষরা গ্রন্থির ক্যান্সার
তথ্যসূত্র : Dr. Stephen Freedland, director of the Center for Integrated Research in Cancer and Lifestyle (CIRCL).

পোল্ট্রি মুরগি

পোল্ট্রি মুরগিকে যে খাবার দেয়া হয় তা তৈরি করার সময় ভারি ধাতব পদার্থ যেমন- কোবাল্ট,নিকেল, ক্রোমিয়াম ইত্যাদি থাকে। অসাধু ব্যবসায়ীরা অনেক সময় পোল্ট্রি ফিডে চামড়া কারখানার ক্রোমিয়াম সমৃদ্ধ বর্জ্য ব্যবহার করে এটি ফুসফুস,গলা, স্তন,নাকের ক্যান্সারে স্পষ্ট ভূমিকা রাখে। ভালো মানের নিরাপদ খাবার খাওয়ানো মুরগির মাংস উত্তম প্রোটিনের উৎস।

খাবারের নাম ক্ষতিকর উপাদান ক্যান্সারের নাম
পোল্ট্রি মুরগি কোবাল্ট,নিকেল, ক্রোমিয়াম ফুসফুস,গলা, স্তন,নাকের ক্যান্সার

স্যাকারিন ও কৃত্রিম মিষ্টি

FDA ঘোষণা করেছে খাবারে স্যাকারিন ব্যবহার নিষিদ্ধ, কারণ স্যাকারিন মূত্রথলির ক্যান্সার ও ম্যালিগন্যান্ট টিউমার সৃষ্টি করে। কৃত্রিম মিষ্টি আখ বা সুগার বিট থেকে তৈরি করা হয় না এগুলো ল্যবরেটরিতে বানানো হয়। নিরাপদ উৎস থেকে বানানো কৃত্রিম মিষ্টি দেহের জন্য ক্ষতিকর নয়।

প্রক্রিয়জাত সাদা আটা

লাল আটা বেশি প্রক্রিয়াজাত করে ধবধবে সাদা আটা তৈরি করা হয়। এই ধবধবে সাদা আটার তাপসহন ক্ষমতা কম। এটা বেশিক্ষণ রান্না করলে বা পোড়ালে খুব সহজে ক্ষতিকর কার্বোহাইড্রেট সৃষ্টি করে। এগুলো কোলন ক্যান্সার সৃষ্টি করতে পারে। তাই সতটা সম্ভব লাল আটা ব্যবহার করুন।

কীটনাশক দেয়া শাকসব্জি

স্বাস্থ্য সুন্দর রাখতে শাকসব্জির বিকল্প নেই। কিন্তু পোকার আক্রমণ থেকে ফসল রক্ষা করার জন্য কীটনাশক স্প্রে করা হয়। এই কীটনাশক তৈরি করা হয় বিভিন্ন অরগানোফসফরাস যৌগ দিয়ে। অর্গানোফসফরাস যৌগের রাসায়নিক ধর্ম রান্না করলেও নষ্ট হয় না। এগুলো খাবারের সাথে দেহে প্রবেশ করে এবং বিভিন্ন ধরণের ক্যান্সার তৈরি করে। মুখ গহ্বর,গলা,অগ্নাশয়,লিভার,পরিপাকতন্ত্রের ক্যান্সার সৃষ্টিতে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখে কীটনাশক।

প্রক্রিয়াজাত মাংস

মাংস প্রক্রিয়াজাত করার সময় প্রচুর লবণ, nitrate ও nitrite যৌগ ব্যবহার করা হয়। এগুলো দেহে বিপাক হওয়ার পর প্রো-কার্সিনোজেন তৈরি করে। কোলন ক্যান্সারের অন্যতম কারণ প্রক্রিয়াজাত মাংস।সংরক্ষণ করা ham, burgers, hot dogs, এবং deli meats খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।

পটেটো চিপস ও ফ্রেঞ্চ ফ্রাই

পটেটো চিপস ও ফ্রেঞ্চ ফাই তৈরি করার সময় ডুবোতেলে উচ্চতাপে ভাজা হয়। এতে আলুর ভালো স্টার্চ পুড়ে গিয়ে ক্ষতিকর acrylamide তৈরি হয় এটা ক্যান্সার উৎপন্নকারী কার্সিনোজেনিক পদার্থ গুলোর মধ্যে অন্যতম। acrylamide কোষের ডিএনএ স্ট্রাকচার পরিবর্তন করতে পারে বা মিউটেশন ঘটায় ফলে ভালো কোষ ক্যান্সার কোষে রূপান্তরিত হয়। পুড়ি,বেগুনি,বেক করা খাবার যতটা সম্ভব এরিয়ে চলুন। মাসে ৩ দিনের বেশি না খাওয়াই ভালো।

মদ

দীর্ঘদদিন যাবৎ অতিরিক্ত মদ বা এলকোহল গ্রহণ করলে দেহে কারসিনোজেন উৎপন্ন হয়। মদ লিভার সিরোসিস সহ লিভার ক্যান্সারের অন্যতম কারণ। পাকস্থলী, কোলন,জরায়ুমুখ এবং ফুসফুস ক্যান্সারের সাথেও এলকোহলের যোগসূত্র রয়েছে।

GMO foods

GMO foods
GMO foods

জিনেটিকেলি মডিফায়েড ফুড (GMO) আমাদের দেশে তেমন একটা নেই। এগুলো জীন নকশা পরিবর্তন করে ক্যান্সার কোষ সৃষ্টি করে।

রিফাইন্ড সাদা চিনি

সাদা রিফাইন্ড চিনি
সাদা রিফাইন্ড চিনি

দেহে অনেক সময় বিনাইন টিউমার সৃষ্টি হয় এগুলো নিরীহ জাতের টিউমার। কিন্তু কিছু বিনাইন টিউমার ভবিষ্যতে ক্যান্সারে রূপান্তরিত হয় এগুলোকে বলে প্রি-ক্যান্সার। রিফাইন্ড সাদা চিনি এই প্রি-ক্যান্সার কোষগুলোকে দ্রুত বৃদ্ধি পেতে সাহায্য করে। যতটা সম্ভব বাদামি চিনি ব্যবহার করুন।

লাল মাংস

প্রোটিনের ভালো উৎস মাংস। লাল মাংস বেশি খাওয়া স্বাস্থ্যকর নয়। অতিরিক্ত লাল মাংস খেলে প্রোস্টেট ও কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। গরু,ছাগল,ভেড়া,শুকর,উট ইত্যাদি পশুর মাংস লাল। ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে লাল মাংসের পরিবর্তে সাদা মাংস মানে মুরগির মাংস খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। সপ্তাহে দুই দিনের বেশি লাল মাংস না খাওয়াই ভালো।

অতিরিক্ত লাল মাংস খাওয়ার কারণে বিশ্বে প্রতিবছর ২০% মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়।

ফরমালিন যুক্ত খাবার ও ফল

ফরমালিন যুক্ত খাবার ক্যান্সারের কারণ
ফরমালিন যুক্ত খাবার

খাবার পচনের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য ফরমালিন ব্যবহার করা হয়।এর রাসায়নিক নাম ফরমালডিহাইড। রান্না করলে ফরমালিন খুব বেশি নষ্ট হয় না। এটি শরীরের ভেতর প্রবেশ করার পর কার্সিনোজেনিক পদার্থ উৎপন্ন করে। এই পদার্থগুলো কোষের জীবনীশক্তি কমিয়ে দেয় এবং কোষের ডিএনএ স্ট্রাকচার পরিবর্তন করে ক্যান্সার কোষ সৃষ্টি করে।

ফরমালিন myeloid leukemia, paranasal sinuses, nasal cavity, এবং nasopharynx এর ক্যান্সার সৃষ্টি করে এটা গবেষণার মাধ্যমে প্রমাণিত।

খাবারের নাম ক্ষতিকর উপাদান ক্যান্সারের নাম
ফরমালিন যুক্ত খাবার ও ফল ফরমালডিহাইড myeloid leukemia, paranasal sinuses, nasal cavity, এবং nasopharynx

অনেক পুরাতন মাখন,ঘি

অনেক পুরাতন মাখন
অনেক পুরাতন মাখন

মাখন ও ঘি চর্বি জাতীয় খাবার। এগুলো দেহে প্রচুর তাপ শক্তি উৎপন্ন করে। টাটকা মাখন ও ঘি স্বাস্থ্যকর খাবার। কিন্তু অনেক দিন ধরে এগুলো সংরক্ষণ করলে এর উপর স্ট্রেপটোক্কাস,স্টেফাইলোক্কাস জাতীয় ব্যাকটেরিয়া এবং এসপারজিলাস জাতের ছত্রাক জন্মায়।

এই জীবাণু খাবারের উপর আলফাটক্সিন উৎপন্ন করে। আলফা টক্সিন লিভারের ক্যান্সার সৃষ্টি করে। খুব অল্প সময়ের মধ্যে এগুলো লিভারকে ধ্বংস করে ফেলে।

পেঁয়াজ ভাজা ও পেঁয়াজু

পেঁয়াজু ও পেঁয়াজ ভাজা
পেঁয়াজু ও পেঁয়াজ ভাজা

পেঁয়াজ ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই করে। কিন্তু পেঁয়াজ ভেজে মুচমুচে করে ফেললে বা পেঁয়াজ দিয়ে মুচমুচে মুখরোচক পেঁয়াজু বানালে পেঁয়াজের উপকারি গুণ নষ্ট হয়ে যায়। এটি তখন ক্যান্সার সৃষ্টির উপাদান হিসেবে কাজ করে।

কালো টোস্ট
কালো টোস্ট
কালো টোস্ট

ময়দা স্বাস্থ্যকর খাবার। কিন্তু পাউরুটি ভেজে কালো টোস্ট তৈরি করলে ময়দার কার্বোহাইড্রেট রূপান্তরিত হয়ে ক্ষতিকর হাইড্রোকার্বন acrylamide তৈরি করে। এটি মারাত্মক বিষাক্ত পদার্থ যা ১৩ ধরনের ক্যান্সার উৎপাদন করে।

পরামর্শ দিয়েছেন-
ড. এস,এম,ডেভিডসন
ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ
কলরাডো,আমেরিকা

Cancer causing food in Bangla

20 Foods That May Increase Your Risk of Cancer, 20 Cancer Causing Foods in Bangla,What foods and drinks are linked to cancer in Bangla, cancer sristikari khabar,kon khabar khele cancer hoy,cancer utpadon kore je khabar

Tag: ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার… ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার….. ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার…. ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার …. ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার … ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার … ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার … ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার … ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার … ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার … ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার..ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার.. ক্যান্সার সৃষ্টিকারী খাবার …

Please Click on Just one Add to help us

মহাশয়, জ্ঞান বিতরণের মত মহৎ কাজে অংশ নিন।ওয়েবসাইট টি পরিচালনার খরচ হিসেবে আপনি কিছু অনুদান দিতে পারেন, স্পন্সর করতে পারেন, এড দিতে পারেন, নিজে না পারলে চ্যারিটি ফান্ডের বা দাতাদের জানাতে পারেন। অনুদান পাঠাতে পারেন এই নম্বরে ০১৭২৩১৬৫৪০৪ বিকাশ,নগদ,রকেট।

এই ওয়েবসাইট আমার নিজের খরচায় চালাই। এড থেকে ডোমেইন খরচই উঠেনা। আমি একা প্রচুর সময় দেই। শিক্ষক হিসেবে আমার জ্ঞান দানের ইচ্ছা থেকেই এই প্রচেষ্টা। আপনি লিখতে পারেন এই ব্লগে। এগিয়ে নিন বাংলায় ভালো কিছু শেখার প্রচেষ্টা।

DMCA.com Protection Status