নিকোটিন টেস্ট থেকে বাঁচার উপায়!!

নিকোটিন টেস্ট থেকে বাঁচার উপায়!!

মানবদেহে নিকোটিনের উপস্থিতি আছে কি না তা যাচায় করার জন্য নিকোটিন টেস্ট করা হয়। অনেক ক্ষেত্রেই নিকোটিন টেস্ট করা হয়। বিশেষ কিছু চাকুরিতে ঢোকার আগে নিকোটিন টেস্ট করা হয় বাধ্যতামূলকভাবে। সিগারেট খাওয়ার পরেও নিকোটিন টেস্টে নেগেটিভ হবেন কিছু নিয়ম মেনে চললে। আজ শিখে ফেলুন নিকোটিন টেস্ট থেকে বাঁচার উপায় উপায় সম্পর্কে।


আপনি আরো পড়তে পারেন….. নিকোটিন টেস্ট কী কিভাবে করে?


শরীর থেকে দ্রুত নিকোটিন বের করার উপায়


নিকোটিন টেস্টের আগে নিচের নিয়মগুলো ফলো করুন তাহলে সহজেই নিকোটিন টেস্টে নেগেটিভ হবেন।

ধুমপান করবেন না

নিকোটিন টেস্ট থেকে বাঁচতে ধুমপান বাদ দিন

নিকোটিন টেস্টে নেগেটিভ হওয়ার পূর্ব শর্ত হলো ধুমপান বন্ধ করা। ধুমপান বন্ধ না করলে কোন উপায়েই আপনি নিকোটিন টেস্টে নেগেটিভ হতে পারবেন না।নিকোটিন টেস্ট করার ১৫ দিন আগে থেকে ধুমপান করবেন না, এতটা সম্ভব না হলে অন্তত ৭ দিন আগে থেকে ধুমপান করবেন না। জর্দা,পাতা,গুল,ভ্যাপ,চুরুট গ্রহণ করবেন না।

পরোক্ষ ধুমপান এরিয়ে চলুন

পরোক্ষ ধুমপান করলে নিকোটিন টেস্টে পজিটিভ হবে।

যেসব স্থানে ধুমপান করা হয় সেখানে যাবেন না। পাশে বসে কেউ ধুমপান করলে দ্রুত স্থানত্যাগ করুন। বাড়িতে কেউ ধুমপান করলে তাকে ধুমপান করতে নিষেধ করুন। কারণ পরোক্ষ ধুমপানের কারণে আপনি নিকোটিন টেস্টে পজিটিভ হতে পারেন।

প্রচুর পানি পান করুন

পানি পান করা

নিকোটিন রক্ত ও কোষের ভেতর থাকে। দিনে ৩-৪ লিটার পানি পান করলে নিকোটিন মূত্রের সাথে দ্রুত দেহ থেকে বের হয়ে যাবে। যতবার মূত্রত্যাগ করবেন ততই রক্তে নিকোটিন লেভেল কমতে থাকবে। অতিরিক্ত পানি দেহের জন্য ক্ষতিকর তাই না বুঝে বেশি পানি গ্রহণ করবেন না।

ক্যানবেরি জুস পান করুন

ক্যানবেরি জুস খেলে নিকোটিন টেস্টে নেগেটিভ হবেন

নিকোটিন টেস্টের ৭ দিন আগে থেকে প্রতিদিন ২০০ মিলি করে ক্যানবেরি জুস পান করলে সাথে ধুমপান না করলে নিকোটিন টেস্টের রেজাল্ট নিগেটিভ আসবে। সুপার সপ গুলোতে ক্যানবেরি জুস কিনতে পারবেন।

কাল আঙ্গুরের জুস পান করুন

কাল আঙ্গুরের জুস পান করলে দেহ থেকে নিকোটিন দ্রুত বের হয়ে যাবে। প্রতিদিন ২০০ মিলি করে আঙ্গুরের জুস পান করুন। ডায়াবেটিস রুগী আবার আঙ্গুরের জুস পান করবেন না।

ডালিম বা বেদানার রস পান করুন

ডালিমের রসে প্রচুর এন্টিঅক্সিডেন্ট আছে এটি দেহকে বিষমুক্ত করতে সাহায্য করে। এই রসে আয়রন থাকে প্রচুর এটা রক্তসঞ্চালন দ্রুত করে ফলে দেহ থেকে দ্রুত নিকোটিন বের হয়ে যায়। নিকোটিন টেস্টের ৭ দিন আগে হতে প্রতিদিন ডালিমের রস পান করুন এককাপ।

গাজরের জুস

গাজরের জ্যুসে প্রচুর এন্টিঅক্সিডেন্ট ও বিটা ক্যারোটিন থাকে এটি দেহকে বিষমুক্ত করতে সাহায্য করে। গাজর জুস করতে না পারলে চিবিয়ে খেতে পারেন। নিকোটিন টেস্টের আগের সপ্তাহ পুরটাই দিনে একবার ৩ টি করে গাজর খাবেন।

লেবু ও কমলালেবুর শরবত খেতে হবে

লেবু ও কমলালেবুর শরবত ভিটামিন সি দিয়ে পূর্ণ থাকে প্রাকৃতিক উপায়ে এই শরবত দেহ থেকে নিকোটিন বের করে দেয়। প্রতিদিন ১ টি লেবু বা ১ টি কমলার তাজা শরবত খেলে দেহ থেকে খুব দ্রুত নিকোটিন বের করে দেবে।

পালংশাক খেতে হবে

পালং শাকে প্রচুর এন্টিঅক্সিডেন্ট ও এন্টিনিকোটিন উপাদান আছে এটি শরীর থেকে দ্রুত নিকোটিন বের করে দেয়। নিকোটিন টেস্টের আগের সপ্তাহে প্রতিদিন সকাল ও দুপুরের খাবার মেনুতে পালংশাক রাখুন।

কলা খেতে হবে

কলা সকল ভিটামিনে পরিপূর্ণ এন্টিঅক্সিডেন্ট যুক্ত ফল এটি দেহে নিকোটিনের প্রভাবে যে ক্ষতি হয় তা দ্রুত পূরণ করে এবং দেহ থেকে নিকোটিন বের করে দেয়।

মাছ মাংস কম খেতে হবে

প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় মাছ মাংস কম রাখুন। নিকোটিন টেস্টের আগের ৩ দিন মাছ মাংস না খাওয়াই ভালো। এসময় প্রচুর সব্জি খাবেন।

লবণ ও চিনি কম খেতে হবে

তরকারিতে বেশি লবণ খাবেন না। লবণাক্ত খাবার যেমন- চিপস,লোনা ইলিশ,ক্যানড ফুড এরিয়ে চলুন।

মদ,কোল্ড ড্রিংকস,কফি খাবেন না

মদ কোলড্রিংক্স কফি খেলে নিকোটিন টেস্টে পজিটিভ হওয়ার সম্ভাবনা বেশি

মদ,কোল্ড ড্রিংকস,কফি একদম স্পর্শ করবেন না। এসব উপাদান দেহ থেকে নিকোটিন নির্গমনের গতি হ্রাস করে। এসব খাবার গ্রহণ করলে দেহে নিকোটিন বেশি সময় ধরে অবস্থান করে। আপনি খুব কম ধুমপান করেন বা পরোক্ষ ধুমপানের শিকার হলেও কফির কারণে নিকোটিন টেস্টে পজিটিভ হতে পারেন।

এছাড়াও এই খাবারগুলো বেশি খাবেন

  • কালজাম
  • স্ট্রবেরি
  • চিনাবাদাম
  • পেস্তাবাদাম
  • পেয়জ
  • রসুন
  • পেপে
  • দিনে ২ টি ডিমের কুসুম,
যে খাবার খেলে নিকোটিন টেস্টে নেগেটিভ হবেন

ব্যায়াম করুন

ব্যায়াম করলে শরীরে প্রচুর ঘাম হবে ফলে এতে দেহ থেকে নিকোটিন বের হতে পারে সামান্য পরিমাণে। ব্যায়াম করার সময় দেহের মেটাবলিজম বৃদ্ধি পায় এতে মূত্রের সাথে নিকোটিন মুক্ত হয়। প্রতিদিন অন্তত ১ ঘন্টা হাটুন বা দৌড়ান।

ব্যায়াম করলে দেহ থেকে নিকোটিন বের হয়ে যায়

ট্যাগ: নিকোটিন টেস্ট থেকে বাঁচার উপায়!! নিকোটিন টেস্ট থেকে বাঁচার উপায়!! নিকোটিন টেস্ট থেকে বাঁচার উপায়!! নিকোটিন টেস্ট থেকে বাঁচার উপায়!! নিকোটিন টেস্ট থেকে বাঁচার উপায়!! নিকোটিন টেস্ট থেকে বাঁচার উপায়!!

তথ্যসূত্র: webmd

Please Click on Just one Add to help us

মহাশয়, জ্ঞান বিতরণের মত মহৎ কাজে অংশ নিন।ওয়েবসাইট টি পরিচালনার খরচ হিসেবে আপনি কিছু অনুদান দিতে পারেন, স্পন্সর করতে পারেন, এড দিতে পারেন, নিজে না পারলে চ্যারিটি ফান্ডের বা দাতাদের জানাতে পারেন। অনুদান পাঠাতে পারেন এই নম্বরে ০১৭২৩১৬৫৪০৪ বিকাশ,নগদ,রকেট।

এই ওয়েবসাইট আমার নিজের খরচায় চালাই। এড থেকে ডোমেইন খরচই উঠেনা। আমি একা প্রচুর সময় দেই। শিক্ষক হিসেবে আমার জ্ঞান দানের ইচ্ছা থেকেই এই প্রচেষ্টা। আপনি লিখতে পারেন এই ব্লগে। এগিয়ে নিন বাংলায় ভালো কিছু শেখার প্রচেষ্টা।